শিগগিরই রাজশাহী-বহরমপুর বাস সার্ভিস : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

রাজশাহী

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি বলেছেন, পদ্মা ও গঙ্গা দুই পারের মানুষের মধ্যে সুদৃঢ় সম্পর্ক রয়েছে। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে বন্ধুপ্রতিম রাষ্ট্র ভারতের সঙ্গে সহযোগীতাপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রেখেছে। এই দুই পারের মানুষের যোগাযোগের ক্ষেত্রে এপারের রাজশাহী ও ওপারের (ভারতের) বহরমপুরের মধ্যে অচিরেই সরাসরি বাস যোগাযোগ চালু করা হবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী এই দুই অংশের মানুষের মধ্যে ট্রেন সার্ভিস চালুর ক্ষেত্রেও বেগ পেতে হবে না।

রবিবার সন্ধ্যায় রাজশাহী নগর ভবনের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলাকে সিটি করপোরেশনের পক্ষে দেয়া নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, ভারতের বিভিন্ন অংশে বিশেষ করে চিকিৎসার জন্য যারা যান, ভিসা পেতে তাদের অনেক সময় নানা সমস্যার সম্মুখিন হতে হয়। ভবিষ্যতে যাতে ভিসা পেতে নাগরিকদের ভোগান্তি না হয় এ জন্য ভারতীয় হাই কমিশনের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে শাহরিয়ার বলেন, ব্যবসার জন্য রাজশাহী এখন অনেক উপযোগী এলাকা হিসেবে পরিচিত হয়েছে। তিনি ভারতীয় ব্যবসায়ীদের রাজশাহী অঞ্চলে বিনিয়োগের আহ্বান জানান। তিনি বলেন ভারতীয় হাই কমিশনারের আগমনে রাজশাহীর যে উন্নয়ন চুক্তি সাক্ষর হলো তা রাজশাহীর জন্য যুগোপোযোগী। এ প্রকল্পের পর ভারত সরকার রাজশাহীর উন্নয়নে আরো নতুন নতুন প্রকল্প হাতে নিবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র নিযাম উল আযিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবধর্না অনুষ্ঠানে ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেন, প্রতিবেশী রাষ্ট্র হিসেবে ভারত বন্ধু রাষ্ট্র বাংলাদেশের তিনিটি নগরীর (রাজশাহী, খুলনা ও সিলেট) উন্নয়নে বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নিয়েছে। যার ধারাবাহিকতায় আজকের এ চুক্তি সম্পাদিত হলো। রাজশাহীতে এসে যে সম্মান ও অভ্যর্থনা আমাকে দেয়া হলো তাতে আমি গর্বিত ও আনন্দিত।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের মুক্তির জন্য বীর মুক্তিযোদ্ধারা ও ভারতীয় সেনাবাহীনি একসঙ্গে রক্ত দিয়েছে। রাজশাহী ও এর আশেপাশের এলাকায়ও যুদ্ধ হয়েছে। মহান মুক্তিযদ্ধের সময় থেকে বঙ্গবন্ধুস শেখ মুজিবুর রহমান ও ইন্দিরা গান্ধি যে সম্পর্ক স্থাপন করেছিলেন বর্তমানে বঙ্গবন্ধু তনায়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের মোদী সরকার সে সম্পর্কে আরো সুদৃঢ় করেছে। বাংলাদেশের উন্নয়নে ভারত সরকার সর্বোচ্চ সহযোগীতা অব্যাহত রাখবে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে হর্ষ বর্ধণ শ্রিংলা বলেন, ভারতীয় ভিসা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে অনেক সহজতর করা হয়েছে। তিনি বলেন বাস যাত্রীদের জন্য এখন আর ই-টোকেনের প্রয়োজন হবে না। ইতিমধ্যে তা ঘোষণা দেয়া হয়েছে।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন রসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরিফ উদ্দিন। অন্যদের মধ্যে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব শাহ মোহাম্মদ আমিনুল হক, রাজশাহীস্থ ভারতীয় হাই কমিশনার অভিজিৎ চট্টপাধ্যায় ও রাজশাহী বিভাগীয় অতিরিক্ত কমিশনার মুনির হোসেন।

খবরঃ দৈনিক সানশাইন

7 thoughts on “শিগগিরই রাজশাহী-বহরমপুর বাস সার্ভিস : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

Comments are closed.