রাবি ও রামেকে ব্যতিক্রমী আয়োজন ওদের আলাদা ভালবাসা

ক্যাম্পাসের খবর রাজশাহী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ

‘ভালবাসা কুক্ষিগত নয়, ভালবাসা সবার জন্য’ এ শ্লোগানে ব্যতিক্রমি আয়োজনে বিশ^ ভালবাসা দিবস পালন করেছে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) শিক্ষার্থীরা। মানবতার কল্যাণে গঠিত নতুন সংগঠন চিরকুমার সংঘের আয়োজনে ভালবাসা দিবস পালন করে তারা।

বেলা ১২টার দিকে রামেক ক্যাম্পাসের প্রশাসন ভবনের সামনে কেক কেটে ভালবাসা দিবসের অনুষ্ঠানের সুচনা কারা হয়। এর পর ক্যাম্পাস থেকে র‌্যালী বের করে। র‌্যালীটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। সংগঠনের টি-শার্ট পড়ে তারা র‌্যালীতে অংশ নেন। এসময় ভালবাসা দিবসের ভালবাসা সবার মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার আহবান জানান তারা।
‘ব্যাচেলর লাইফই সর্বজনীন, ব্যাচেলর লাইফই চিরন্তন’ এ শ্লোগান নিয়ে মানবতার কল্যাণে ‘চিরকুমার সংঘ’ গঠন করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজে (রামেক) শিক্ষার্থীরা। যার উদ্যোক্তা সংগঠনের উদ্যোক্তা মেহেদী হাসান সুমন ও মিজানুর রহমান।

সংগঠনের উদ্যোক্তা মেহেদী হাসান সুমন জানান, এ সংগঠনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সচেতনা মূলক কর্মসূচী পালন করা হবে। এ সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রথম ভালবাসা দিবস পালন করা হয়েছে। ভালবাসা দিবসের এবারের স্লোগান ছিল ‘ভালবাসা কুক্ষিগত নয়, ভালবাসা সবার জন্য’। মহান ভালবাসা দিবসে ভালবাসা সবার মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার সচেতন করতে এই ব্যতিক্রমি কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়: বিশ্ব ভালোবাসা দিবসটি অনেকের কাছে সুখের আবার অনেকের কাছ ক্ষোভের। আজকের দিনটিতে কেউ হয়তো ভালোবাসার মানুষটিকে নিয়ে আনন্দ-উল্লাসে পার করছেন দিনটি। আবার কেউবা তাদের এ আনন্দ-উল্লাস দেখে ক্ষোভে-দুঃখে ফেটে পড়ছেন। এমনই ঘটনার দেখা মিলেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে।

প্রেমের সুষম বন্টন চাই দাবিতে রাবিতে প্রেম বঞ্চিত তরুণেরা বিক্ষোভ মিছিল করেছে। ভালেবাসার মানুষটিকে নিয়ে ঘুরতে না পেরে বা প্রেম করতে না পারার হতাশায় এমন ব্যতিক্রমী বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন বলে জানান প্রেম বঞ্চিত সংঘের সভাপতি রবিউল আলম অনিক। মঙ্গলবার ‘প্রেম বঞ্চিত সংঘের’ ব্যানারে শতাধিক তরুণ এ কর্মসূচির আয়োজন করে।
মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের টুকিটাকি চত্বর থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের প্রধান সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে। মিছিল নিয়ে তারা বিভিন্ন একাডেমিক ভবন ও আবাসিক হলের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে। মিছিল থেকে ‘কেউ পাবে-কেউ পাবে না, তা হবে না তা হবে না’, ‘দেহ নয় মন চাই, প্রেম করে বাঁচতে চাই’, ‘প্রেমের নামে প্রহসন, বন্ধ কর, করতে হবে’- এমন স্লোগানে পুরো ক্যাম্পাস মাতিয়ে তোলে প্রেম বঞ্চিতরা।

সমাবেশ থেকে প্রেম বঞ্চিত সংঘের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাহিনুল ইসলাম রিংকু বলেন, ক্যাম্পাসে প্রেমের ক্ষেত্রে সুষম বন্টনের নিশ্চয়তা চাই। বড় ভাইয়েরা যেমন ছোট ভাইদের সঙ্গে প্রেম করতে পারে তেমনি ছোট ভাইয়েরাও যেন বড় আপুদের সঙ্গে প্রেম করতে পারে সে ব্যবস্থা চাই। ক্যাম্পাসে আমরা দেখছি বেশ কিছু শিক্ষার্থী একাধিক প্রেমে লিপ্ত, যা অতি দ্রুত বন্ধ করতে হবে। ছেলে বা মেয়েরা প্রেমের নামে যে প্রতারণা করে তা বন্ধ করতে হবে। সমাবেশে আরো বক্তব্য দেন, প্রেম বঞ্চিত সংঘের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাইন দিপু।

খবরঃ দৈনিক সানশাইন