স্বর্ণালীর চিকিৎসা নিয়ে গড়িমসি!

রাজশাহী

বিরল রোগে আক্রান্ত মেহেরিন আক্তার স্বর্ণালীর (১২) চিকিৎসায় গড়িমসির অভিযোগ উঠেছে। ভর্তির চার দিনেও হয়নি তার পুরো পরীক্ষা-নীরিক্ষা। এতে এখনো তার চিকিৎসা শুরু হয়নি পুরোপুরি। এর আগে গত ৭ নভেম্বর রাজশাহী সিভিল সার্জন দপ্তর স্বর্ণালীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করে। ওই দিন থেকে হাসপাতালের মেডিসন ইউনিট-২ এর ২৩ নম্বর বেডে চিকিৎসাধীন সে।

তার চিকিৎসায় ভর্তির পরদিন মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়। ওই দিনই তার রক্তের বিভিন্ন পরীক্ষা, এমআরই, আলট্রসনোগ্রাম, এক্সরে করাতে দেন চিকিৎসক। সম্পূর্ণ ফ্রিতে এসব পরীক্ষা করানোর সুযোগ দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
কিন্তু ফ্রি পরীক্ষা-নীরিক্ষা জেনে সংশ্লিষ্টরা সময়ক্ষেপন করছেন বলে অভিযোগ করেছেন হাসপাতালে স্বর্ণালীর সাথে থাকা তার মা রুমা বেগম। তিনি বলেন, প্রতিদিনই নমুনা নিয়ে রক্ত রিপোর্ট দেয়া হচ্ছে অন্যদের। কিন্তু স্বর্ণালীর প্রতিবেদন দেয়া হয়েছে দুই দিন পর। এদিন ঘুরে নমুনা জমা দেন তারা। ঘুরে ঘরে আলট্রাসনোগ্রাম করিয়েছেন শনিবার। পেয়েছেন ইউরিন পরীক্ষার রিপোর্টাও।

হাসপাতালের এক্সরে কাউন্টারের সামনে অপেক্ষমান রুমা বেগম বলেন, কয়েকবার ঘুরেও এমআরআই ও সিটিস্ক্যান হয়নি। এ দুই পরীক্ষা আজ রোববার হবে বলে জানানো হয়েছে। সবমিলিয়ে পরীক্ষা-নীরিক্ষা করতে দেয়া হয়েছে সাতটি। এ চারদিনে হয়েছে মাত্র তিনটি। পরীক্ষা-নীরিক্ষা শেষ না হওয়ায় শুরু হচ্ছে পুরোপুরি চিকিৎসা।

স্বর্ণালীর চিকিৎসা তত্ত্বাবধান করছে রাজশাহী সিভিল সার্জন দপ্তর। তার চিকিৎসায় অবহেলা হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে রাজশাহীর সিভিল সার্জন ডা. সঞ্জিত কুমার সাহা বলেন, এমনটি হবার সুযোগ নেই। তার চিকিৎসার দায়িত্ব এখন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। এনিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে তাদের যোগাযোগ হচ্ছে বলে জানান সিভিল সার্জন।

শনিবার দুপুরে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জামিরুল রহমানকে তার দপ্তরে পাওয়া যায়নি। দপ্তর মেরামতকাজ চলায় পাওয়া যায়নি উপপরিচালক ডা. সাদিকুল ইসলামকেও। তবে মুঠোফোনে যোগাযোগ হলে এনিয়ে কথা বলতে রাজি হননি উপপরিচালক।

জেলার পবা উপজেলার বড়গাছি ইউনিয়নের টেগাটাপাড়ার আবদুল মান্নানের মেয়ে স্বর্ণালীর ডান হাতে দেখা দিয়েছে এ বিরল রোগ। সে পাশর্^বর্তী নোনামাটিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী। কিন্তু অর্থের অভাবে এতো দিন বন্ধ ছিলো তার চিকিৎসা। গত ৬ নভেম্বর জাগো নিউজসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে এনিয়ে সংবাদ প্রকাশ হলে টনক নড়ে সিভিল সার্জন দপ্তরের। পরদিন তারা স্বর্ণালীকে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করে।

খবরঃ ডেইলি সানশাইন