দশ মামলার তথ্য গোপন করায় বিএনপি প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

দুর্গাপুর পুঠিয়া রাজশাহী

মনোনয়নপত্রে ১০টি মামলার তথ্য গোপন করেছেন রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনে বিএনপির প্রার্থী অ্যাডভোকেট নাদিম মোস্তফা। এছাড়া ঋণ খেলাপিও হয়েছেন তিনি। এসব কারণেই নির্বাচনে তার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে। ১৯৯৬ ও ২০০১ সালে এই আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি।

যাচাই-বাছাই শেষে রোববার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে তার মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন জেলা প্রশাসক ও নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা এসএম আবদুল কাদের। তিনি বলেন, ১০টি মামলার তথ্য গোপন করেছেন নাদিম মোস্তফা।

এর মধ্যে পুঠিয়া থানার ৫টি, দুর্গাপুর থানার দুটি এবং বাঘমারা থানার তিনটি মামলার তথ্য গোপন করেছেন তিনি। এছাড়া বেসিক ব্যাংকের ঋণ খেলাপি তিনি। এসব কারণেই তার মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে।

এছাড়া দলীয় মনোনয়নের চিঠি না থাকায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী ওবাইদুর রহমান, মনোনয়নপত্রে ত্রুটি থাকায় ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী রুহুল আমিনের এবং হলফ নামায় স্বাক্ষর না থাকায় বিএনপির প্রার্থী আবু বকর সিদ্দিকের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে।

এ আসনে মনোনয়নপত্র বৈধ হয়েছে, আওয়ামী লীগের প্রার্থী ডা. মুনসুর রহমান, বিএনপির দুই প্রার্থী অধ্যাপক নজরুল ইসলাম মন্ডল ও মাহমুদা হাবীবা, জাতীয় পার্টির আবুল হোসেন, বিএনএফের প্রার্থী মখলেসুর রহমান এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক এমপি তাজুল ইসলাম মো. ফারুকের।

নির্বাচন দপ্তর বলছে, রোববার সকাল থেকে রাজশাহীর ছয় সংসদীয় আসনের মধ্যে চারটির মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হয়েছে। এর মধ্যে রাজশাহী-১ আসনে ৮ জন, রাজশাহী-২ আসনে দুজন, রাজশাহী-৩ আসনে ৫ জন এবং রাজশাহী-৪ আসনে দুই প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে।

এবার রাজশাহী-১ আসনে ১২ জন, রাজশাহী-২ আসনে ৮ জন, রাজশাহী-৩ আসনে ১০ জন এবং রাজশাহী-৪ আসনে ৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। রাজশাহীর ছয়টি সংসদীয় আসনে এবার মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন ৬৭ জন। এর মধ্যে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন ৪৩ প্রার্থী।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ জাগোনিউজ২৪