রাজশাহীর ৬ আসনে বর্তমান ৫ এমপিসহ ৩০ প্রার্থী বৈধ

রাজশাহী

রাজশাহীর ছয়টি সংসদীয় আসনে দাখিলকৃত মোট ৫৩ প্রার্থীর মধ্যে ৩০ জন প্রার্থীকে একাদশ সংসদ নির্বাচনের জন্য বৈধ বলে ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যে বর্তমানে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য এমন প্রার্থী রয়েছেন পাঁচজন।

রোববার (০২ ডিসেম্বর) যাচাই-বাছাই শেষে বিকেলে রাজশাহী জেলা রিটার্নিং অফিসার এস. এম. আব্দুল কাদের এই ৩০ প্রার্থীকে বৈধ বলে ঘোষণা করেন।

বৈধ হওয়া সরকার দলীয় পাঁচ সংসদ সদস্য হলেন: রাজশাহী-১ (গোদাগাড়ী-তানোর) আসনে ওমর ফারুক চৌধুরী, রাজশাহী-২ (সদর) আসনে ফজলে হোসেন বাদশা, রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনে আয়েন উদ্দিন, রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনে ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক ও রাজশাহী-৬ (বাঘা-চারঘাট) আসনে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

এছাড়া রাজশাহী-১ আসনের অন্য বৈধ প্রার্থীরা হলেন: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আবদুল মান্নান, ওয়ার্কার্স পাটির রফিকুল ইসলাম পিয়ারুল, সদ্য মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া বিএনপি নেতা সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আমিনুল হকের স্ত্রী আভা হক।
রাজশাহী-২ আসনের অন্য বৈধ প্রার্থীরা হলেন: সিপিবি নেতা এনামুল হক, বিএনপি নেতা মিজানুর রহমান মিনু ও সাহিদ হাসান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নেতা ফয়সাল হোসেন। জাতীয় পার্টির নেতা খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান।

রাজশাহী-৩ আসনের অন্য বৈধ প্রার্থীরা হলেন: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নেতা ফজলুর রহমান, যুক্তফ্রন্ট (এলডিপি) নেতা মনিরুজ্জামান, বাংলাদেশ সাম্যবাদী দলের (এমএলএল) নেতা সাজ্জাদ আলী, বিএনপি নেতা শফিকুল হক মিলন।

রাজশাহী-৪ আসনের অন্য বৈধ প্রার্থীরা হলেন: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নেতা তাজুল ইসলাম খান ও বিএনপি নেতা আবু হেনা।

রাজশাহী-৫ আসনের অন্য বৈধ প্রার্থীরা হলেন: স্বতন্ত্র প্রার্থী তাজুল ইসলাম মোহাম্মদ ফারুক, বিএনপি নেত্রী মাহমুদা হাবীবা, বিএনএফ নেতা মখলেসুর রহমান, আওয়ামী লীগ নেতা মনসুর রহমান, জাতীয় পার্টির নেতা আবুল হোসেন, বিএনপি নেতা অধ্যাপক নজরুল ইসলাম, জাকের পার্টির নেতা শফিকুল ইসলাম।

রাজশাহী-৬ আসনের অন্য বৈধ প্রার্থীরা হলেন: জাতীয় পার্টির নেতা ইকবাল হোসেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নেতা আব্দুস সালাম সুরুজ, বিএনপি নেতা নুরুজ্জামান খান ও বজলুর রহমান।

রাজশাহী জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা এস. এম. আব্দুল কাদের জানান, রাজশাহীর ছয়টি সংসদীয় আসনে এবার মোট ৬৮ জন মনোনয়নপত্র তুলেছিলেন। এর মধ্যে দাখিল করেন ৫৩ জন প্রার্থী। ১৫ জন প্রার্থী নির্বাচন থেকে সড়ে দাঁড়ান।

রোববার যাচাই-বাছাই শেষে ৫৩ জন প্রার্থীর মধ্যে বিভিন্ন কারণে ২৩ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। বাকি ৩০ জন প্রার্থীকে বৈধ হিসেবে ঘোষণা করা হয়। এখন প্রত্যাহার শেষে চূড়ান্ত প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হবে। তবে এর আগ পর্যন্ত মনোনয়পত্র বাতিল হওয়া প্রার্থীরা আপিল করার সুযোগ পাবেন।

এদিকে, রোববার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত রাজশাহী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে থাকা রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই করা হয়। এ সময় রাজশাহী-১ আসনে দাখিল করা ১২ জনের মধ্যে ৮ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। রাজশাহী-২ আসনে দাখিল করা ৮ জনের মধ্যে ২ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। রাজশাহী-৩ আসনে দাখিল করা ১০ জনের মধ্যে ৫ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। রাজশাহী-৪ আসনে দাখিল করা ৫ জনের মধ্যে ২ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। রাজশাহী-৫ আসনে দাখিল করা ১১ জনের মধ্যে ৪ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। এছাড়া রাজশাহী-৬ আসনে দাখিল করা ৭ জনের মধ্যে ২ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল বলে ঘোষণা করা হয়।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র বাছাই শেষে বৈধ প্রার্থীরা আগামী ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করতে পারবেন। পরদিন ১০ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দ করবেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা।

তারপর প্রার্থীরা ১১ ডিসেম্বর থেকেই প্রচারে নামতে পারবেন। আর একাদশ সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ করা হবে আগামী ৩০ ডিসেম্বর।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ বাংলানিউজ২৪