নৌকা মুক্তিযুদ্ধের ও উন্নয়নের প্রতীক : শাহরিয়ার

চারঘাট বাঘা রাজশাহী

প্রায় কয়েকদিন ধরে ভোটের মাঠে ছিলো চরম উত্তেজনা,উদ্বেগ উৎকণ্ঠা। শুর থেকেই নানা গুজনে অনেকটাই দিশাহারা হয়ে পড়েছিলেন তারা। শেষ পর্যন্ত জল্পনা-কল্পনা শেষে রাজশাহীর চারঘাট-বাঘা তৃতীয়বারের মতো নৌকার মাঝি হওয়ায় পট পরির্বতন হতে থাকে ভোটের মাঠ। নেতাকর্মীদের মাঝে আনন্দ উল্লাস ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র।

রাজশাহী-৬ (চারঘাট-বাঘা) আসনে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও বাঘা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহরিয়ার আলমকে এবারো নিবার্চনে জয়লাভের প্রত্যাশা এবং বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিবেন। প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে সৃষ্টি হয় নেতাকর্মীদের মাঝে শুরু হয় ভোটের প্রচারণা। চারিদিকে পোষ্টার,ব্যানার ও মাইকিং সরগরম চারঘাটে ভোটের মাঠ।

রাজশাহী-৬ (চারঘাট-বাঘা) আসনে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও বাঘা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আলহাজ্ব শাহরিয়ার আলম বৃহস্পতিবার বিকেলে আসন্ন একাদশ জাতীয় সাংসদ নির্বাচন প্রচারনায় উপজেলার শলুয়া ইউনিয়নে মালেকার মোড়, বামনদিঘী বাজার, হলিদাগাছি ,ফতেপুর এলাকায় গণসংযোগ মাধ্যমে মানুষের-দারে দারে গিয়ে নৌকা প্রতিকের পক্ষে ভোট ও দোয়া চেয়েছেন। রাজশাহী-৬ আসন থেকে পরপর দুইবার নির্বাচিত প্রার্থী শাহরিয়ার আলম এমপি। এ প্রচারনায় প্রার্থীকে কাছে পেয়ে অত্যান্ত আনন্দিত হয়েছেন ভোটাররা।

বুধবার পৌরসভার চকমুক্তারপুর এলাকায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে এই প্রচারণা। এ সময় তার সাথে ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ফকরুল ইসলাম, পৌর সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন, সাধারন সম্পাদক একরামুল হক ও শলুয় ইউনিয়ন আ’লীগের সাদারন সম্পাদক মখলেছুর রহমান মকাসহ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী।

ভোট চাইতে গিয়ে শাহরিয়ার আলম এমপি বলেন, নৌকা মুক্তিযুদ্ধের প্রতিক, উন্নয়নের প্রতীক। বাংলাদেশের সব উন্নয়নে এই নৌকারই কৃতিত্ব। তাই আসন্ন নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে দেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে হবে। তিনি বলেন, আমি যদি এলাকায় উন্নয়ন করে থাকি তাহলে আপনারা আমাকে ভোট দিবেন।

চারঘাট পৌরসভায় গনসংযোগকালে এক পথ সভায় মন্ত্রী বলেন, হাতে বেশি সময় নেই। আর মাত্র ১৭ দিন পর নির্বাচন। এই নির্বাচন অত্যান্ত চ্যালেঞ্জ মুখর নির্বাচন। আপনরা এক কেন্দ্রের মানুষ আরেক কেন্দ্রে গিয়ে প্রচারনা চালাবেন না। প্রচারনা চালাবেন নিজ-নিজ কেন্দ্র এলাকায়।

আমার বিশ্বাস আওয়ামী লীগসহ সকল সহযোগী সংগঠনগুলো যদি একবার করে প্রতিটা ভোটারের বাড়িতে গিয়ে সরকারের উন্ন্য়নের কথা এক-একজন ভোটারের কাছে তুলে ধরবেন এবং তিনি দলের সকল নেতা-কর্মীদের মতভেদ ভুলে গিয়ে এক কাতারে এসে নৌকার পক্ষে নির্বাচন প্রচারণার করার আহ্বান জানান।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ ডেইলি সানশাইন