রাজশাহী জেলায় নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ২

রাজশাহী

রাজশাহীতে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সহিংসতায় দুইজন নিহত হয়েছেন। ভোটকেন্দ্রের কাছে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যকার দ্বন্দ্বের কারণে এ দুইজন নিহত হন বলে অভিযোগ পাওয়াগেছে।

নিহতরা হলেন রাজশাহী জেলার মোহনপুর উপজেলার মেরাজ ও তানোর উপজেলার বাসিন্দা মোদাস্সের।

রাজশাহী জেলার নির্বাচনী আসন ৩ (পবা-মোহনপুর) এ সহিংসতায় স্থানীয় এক যুবক নিহত হয়েছেন। মোহনপুর পাকুড়িয়া স্কুলের ভোট কেন্দ্রের কাছে নির্বাচনী সহিংসতায় নিহতের নাম মেরাজ। তিনি মোহনপুর পাকুড়িয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা বলে জানাগেছে।

স্থানীয় আ’লীগ ও জেলা পুলিশের দাবি নিহত মেরাজ পাকুড়িয়া ইউনিয়নের ছাত্রলীগের নেতা। তবে পরিবারের দাবি নিহত মেরাজ কোন দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত নয়।

সূত্রমতে, সকালে ভোটগ্রহণ শুরুর পর আ’লীগের প্রাথী ও আসনটির সাংসদ আয়েন উদ্দিনের সমর্থক এবং বিএনপির প্রার্থী ও রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি শফিকুল হক মিলনের সমর্থকদের সাথে ধাওয়া পালটা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

এরপর একটি সাদা মাইক্রোতে কিছু অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তি হেলমেট পরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। এসময় তাদের কাছে থাকা দেশিয় অস্ত্র দিয়ে ভোটকেন্দ্রের সামনে অতর্কিত আক্রমন চালায়। আক্রমনকারীদের সামনে মেরাজ চলে আসলে তাদের অস্ত্রের আঘাতে সে ঘটনা স্থলেই নিহতহন।

নিহতের চাচা মকবুল ও ভাই হুমায়ুন জানান, মেরাজ ভোট দিতে গেছিল। তবে সে কোন দলের সাথে সম্পৃক্ত নয়।

এদিকে রাজশাহী-১ আসনের তানোর উপজেলার নিহত মোদাস্সের তার নির্ধারিত কেন্দ্রে ভোট দিতে গেলে, বিএনপি প্রর্থী এনামুল হক ও আ’লীগ প্রার্থী ফারুক চৌধুরীর সমর্থকদের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ঘটনা ঘটে। এসময় সে ঘটনারস্থলে হার্ট এটাক করে মারা যান।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ ডেইলি সানশাইন