বাবার সঙ্গে অপহরণের নাটক; ফেঁসে গেলো ছেলে

অপরাধ রাজশাহী

opo

রাজশাহী মহানগরীতে অভিনব কায়দায় অপহরণের নাটক সাজিয়ে বাবার কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিতে গিয়ে ফেঁসে গেছে ছেলে ও তার দুই বন্ধু। বাবার দেয়া টাকা বিকাশ অ্যাজেন্টের কাছ থেকে তুলতে গিয়ে তারা পুলিশ হাতে ধরা পড়ে।

বুধবার বিকেল ৩টার দিকে লক্ষ্মীপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আটকরা হলেন- পুঠিয়ার কাঠালবাড়িয়া এলাকার লতিফ শেখের ছেলে সেলিম শেখ (২০), বহরমপুর এলাকার সাদ এর ছেলে শিমুল (২০) ও একই এলাকার ফরিদ উদ্দিন (২০)। একইসঙ্গে পুলিশ বিকাশ অ্যাজেন্টকে আটক করে।

রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদি হাসান জানান, পুঠিয়ার কাঠালবাড়িয়া এলাকার আব্দুল লতিফ শেখের ছেলে সেলিম শেখ (২০) বাবার কাছ থেকে টাকা নেয়ার জন্য বন্ধুদের সঙ্গে যোগসাজস করে নিজে নিজে অপহরণ নাটক সাজায়।

সেলিম তার বাবার কাছে ফোন দিয়ে জানায় তাকে অপহরণ করা হয়েছে। অপহরণকারীরা এক লাখ টাকা মুক্তিপন পেলে তাকে ছেড়ে দেবে। তার কথায় বিশ্বাস করে বাবা লতিফ শেখ একটি বিকাশ নম্বরে ৫০ হাজার টাকা পাঠান। পরে সেলিম শেখ পুনরায় তার বাবার কাছে ফোন দিয়ে জানায় আরও ৫০ হাজার টাকা না হলে তাকে অপহরণকারীরা ছাড়বে না।

ছেলের কথায় বাবা লতিফ শেখের সন্দেহ হয়। পরে তিনি তাদের দেয়া বিকাশ নাম্বারটি পরিচিতদের দিয়ে খোঁজ নিতে বলেন। পরিচিতরা খোঁজ নিয়ে জানতে পারে ওই বিকাশ নাম্বারটি লক্ষ্মীপুর যাত্রী ছাউনির এক দোকানদারের। পরে বিষয়টি লক্ষ্মীপুর পুলিশ বক্সের ইনচার্জ টিএসআই মতিউর রহমানকে জানায়। বিকাশ থেকে টাকা উঠানোর সময় ছেলে সেলিম ও তার দুই বন্ধুকে হাতেনাতে আটক করে লক্ষ্মীপুর পুলিশ বক্সের ইনচার্জ মতিউর রহমান।  একইসঙ্গে ওই বিকাশ দোকানদারকেও আটক করে রাজপাড়া থানায় নেয়া হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সেলিম শেখ রাজশাহী নিউ গভ. ডিগ্রি কলেজ থেকে এবার এইচএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে। বন্ধুদের সঙ্গে আইপিএল খেলায় বাজি ধরে সে মোটা অঙ্কের টাকা হেরে যায়। যারা সেলিমের কাছ থেকে টাকা পাবে তারা চাপ দেয়। এ অবস্থায় সেলিম সেই টাকা বাবার কাছ থেকে নেয়ার জন্য কয়েকজন বন্ধুদের সঙ্গে যোগসাজস করে এই অপহরণ নাটক সাজায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.